আমরা শপথ নিচ্ছি না: ফখরুল

একাদশ সংসদ নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করা বিএনপির নির্বাচিতরা সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেবেন না বলে জানিয়েছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এবারের নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থীদের নিয়ে এক ‘জরুরি’ বৈঠক শেষে বৃহস্পতিবার দুপুরে ফখরুলের এ ঘোষণা আসে।

বেলা ১১টায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে যখন এই বৈঠক শুরু হয়, ঠিক ওই সময়ই জাতীয় সংসদে শুরু হয় একাদশ সংসদে নির্বাচিতদের শপথ অনুষ্ঠান।

গত ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনে বিএনপির পাঁচজন এবং তাদের জোটের শরিক গণফোরামের দুইজন নির্বাচিত হলেও তারা কেউ শপথ নিতে যাননি।

কারচুপির অভিযোগ তুলে পুননির্বাচনের দাবি জানিয়ে আসা বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচিতরা যে বৃহস্পতিবার শপথ নিচ্ছেন না, সে ইংগিত তাদের কর্মসূচি থেকেই মিলেছিল।

কিন্তু প্রথম অধিবেশন শুরুর ৯০ দিনের মধ্যে শপথ নেওয়ার সুযোগ থাকায় তারা পরে শপথ নিতে পারেন বলেও গুঞ্জন ছিল। গুলশানে প্রার্থীদের সঙ্গে বৈঠকের পর সেই সম্ভাবনা নাকচ করে দেন মির্জা ফখরুল।

সাংবাদিকদের প্রশ্নে তিনি বলেন, “শপথ তো পার হয়ে গেছে, প্রত্যাখ্যান করলে শপথ থাকে নাকি আর?… আমরা শপথ নিচ্ছি না, পরিস্কার করে বললাম “

মির্জা ফখরুল জানান, সারাদেশে নির্বাচনের দিন ‘অনিয়মের’ বিভিন্ন অভিযোগ এবং নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে পুনঃনির্বাচনের দাবি সম্বলিত স্মারকলিপি নিয়ে বিকালে নির্বাচন কমিশনে যাচ্ছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

এছাড়া জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সব প্রার্থী আলাদাভাবে নির্বাচনের অনিয়ম ও কারচুপির বিষয়ে নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে মামলা করবেন বলে জানান তিনি।

৩০ ডিসেম্বর ওই ভোটে বিএনপি ৫টি আসনে এবং জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিক গণফোরাম দুটি আসনে জয়ী হতে পেরেছে। অন্যদিকে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ পেয়েছে ২৫৭ আসন, জোটগতভাবে তাদের আসন সংখ্যা ২৮৮। এই নিরঙ্কুশ জয়ে টানা তৃতীয় মেয়াদে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করতে যাচ্ছে।