কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী

লোকসভা ভোটের আগে বড় চমক দিল কংগ্রেস। সক্রিয়ভাবে রাজনীতিতে নিয়ে আসা হলো রাজীব-সোনিয়ার মেয়ে প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভদ্রকে।

আজ বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে তাঁকে দলের সাধারণ সম্পাদক নিযুক্ত করা হয়। প্রিয়াঙ্কাকে উত্তর প্রদেশের পূর্বাঞ্চলের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। পশ্চিমাঞ্চলের দায়িত্বে আনা হয়েছে মধ্যপ্রদেশের তরুণ নেতা জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়াকে। প্রিয়াঙ্কা ফেব্রুয়ারি মাস থেকে দায়িত্ব গ্রহণ করবেন।

দলের পক্ষ থেকে সংবাদ বিবৃতিতে এ খবর জানানোর সময় প্রিয়াঙ্কা দিল্লিতে ছিলেন না। ছিলেন না তাঁর ভাই কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীও। দুই দিনের প্রচারে রাহুল গেছেন আমেথি। এই অবসরে অল ইন্ডিয়া কংগ্রেস কমিটির পক্ষে দলের সাধারণ সম্পাদক ও রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট এক বিবৃতিতে প্রিয়াঙ্কার নিযুক্তির খবর জানান।

বিবৃতিতে আরও দুটি ঘোষণা রয়েছে। একটি হলো প্রবীণ নেতা গুলাম নবী আজাদকে হরিয়ানা রাজ্যের দায়িত্বে আনা, অন্যটি অশোক গেহলটের জায়গায় সাংগঠনিক সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব কে সি বেনুগোপালের হাতে তুলে দেওয়া। লোকসভা ভোটের আগে প্রতিটি নিযুক্তিই গুরুত্বপূর্ণ।

সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকেই প্রিয়াঙ্কা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নেতাকর্মীদের প্রশংসায় ভাসছেন। অন্যান্য রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতারাও অভিনন্দন জানিয়েছেন।

নেতাকর্মীরা বলছেন, ২০১৪ সালের নির্বাচন পরবর্তী বাজে সময় উৎরে বিভিন্ন রাজ্যে ভাল ফল করছে কংগ্রেস। এমন সময়ে প্রিয়াঙ্কার আবির্ভাব দলের পালে হাওয়া দেবে, জোরাল করবে বিজেপিবিরোধী ঐক্যকেও।

সমর্থকরা তার মধ্যে ইন্দিরা গান্ধীর প্রতিচ্ছবিও দেখতে পান। দাদির মতো পরীক্ষিত না হলেও প্রিয়াঙ্কা রাজনৈতিক প্রজ্ঞা ও দূরদর্শিতা দিয়ে কংগ্রেসকে আবারও ভারতের সবচেয়ে শক্তিশালী সংগঠনে পরিণত করবেন বলেও আশা তাদের।