কারাগার থেকে হাসপাতালে সম্রাট

ইসমাঈল হোসেন চৌধুরী সম্রাটকে কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে অসুস্থতার কারণে প্রথমে ঢাকা মেডিক্যালে ও পরে হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে নেওয়া হয়েছে।

বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ) আইনে ভ্রাম্যমাণ আদালত ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়ার পর গত রোববার সম্রাটকে রাখা হয়েছিল কেরানীগঞ্জে ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে।

সেখান থেকে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে তাকে প্রথামে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং পরে সেখান থেকে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে নেওয়া হয়।

ঢাকা মেডিকেলে দায়িত্বরত র‌্যাব সদস্য মোতালেব হোসেন বলেন, “উনি বুকের ব্যথা অনুভব করার কথা বলায় কারাগার থেকে এখানে নিয়ে আসা হয়। এখানে ইসিজি করার পর ডাক্তারের পরামর্শে ৮টার দিকে হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।”

হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের পরিচালক আফজালুর রহমান বলেন, “উনার (সম্রাট) ভাল্ব আগেই রিপ্লেস করা হয়েছে। সেটা ভাল আছে। সকালে বুকের ব্যথা নিয়ে এখানে এসেছেন। এখন অবস্থা স্থিতিশীল। আমরা জরুরি মেডিকেল বোর্ড করেছি। চিকিৎসার কোনো ত্রুটি হচ্ছে না।”

চিকিৎসকরা জানান, ১৯৯৮ সালে সম্রাটের হৃদপিণ্ডের একটি ভাল্ব রিপ্লেস করা হয়েছিল। তবে হাসপাতালে আনার পর তার হৃদস্পন্দন স্বাভাবিক পাওয়া গেছে। তাকে সিসিইউতে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

‘রবিবার (৬ অক্টোবর) ভোরের দিকে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থেকে সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে সম্রাট ও তার সহযোগী আরমানকে গ্রেফতার করা হয়।’

Leave a Reply

shares