কালোবাজারে বিক্রির সময় চৌগাছায় হতদরিদ্রদের ৩৯ বস্তা চাউল আটক

স্টাফ রিপোর্টার চৌগাছা (যশোর) :

যশোরের চৌগাছায় কালোবাজারে বিক্রি করার সময় হতদরিদ্রদের ৩৯ বস্তা চাউল আটক করলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম।

শনিবার দুপুরে তিনি পৌরশহরের প্রেমরোডের চৌরাস্তার মোড় থেকে এ চাউল আটক করেন। এ ঘটনায় ৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ৫ দিনের মধ্যে তদন্ত কমিটিকে সঠিক তদন্ত রির্পোট দাখিল করতে বলা হয়েছে।

জানা যায়, উপজেলার কাবিলপুর বাজার থেকে ২টি আলমসাধু যোগে ৩৯ বস্তা চাউল আসছিল পৌরশহরের লিটন হোসেন নামে এক আড়ৎ ব্যবসায়ীর ঘরে। দশ টাকা কেজি সরকারি এ চাউল কালোবাজারে বিক্রিকরা হচ্ছে এমন সংবাদে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম অভিযান চালিয়ে তা আটক করেন।

উপজেলার কাবিলপুর বাজারের আড়ৎ ব্যবসায়ী জহুরুল ইসলাম সরকারি বস্তায় মোড়ক হত দরিদ্রদের নিকট থেকে ৭১০ টাকা বস্তা দরে ৩৯ বস্তা চাউল ক্রয় করেন। যা তিনি চৌগাছা শহরের লিটন হোসেন নামে এক আড়ৎ ব্যবসায়ীর ঘরে পাঠাচ্ছিলেন।

এ ব্যাপারে কাবিলপুর বাজারে হতদরিদ্রদের চাউলের ডিলার ফিরোজ হোসেন বলেন, ১৮ মার্চ আমার এলাকায় চাল দেওয়া শেষ হয়েছে। শুনেছি কাবিলপুর বাজারের আড়ৎ ব্যবসায়ী জহুরুল ইসলাম গরীবদের নিকট থেকে এ চাল ক্রয় করেছেন। এ ছাড়া চালের ব্যাপারে আমার কোন কিছুই জানা নেই।

কাবিলপুর বাজারের আড়ৎ ব্যবসায়ী জহুরুল ইসলাম বলেন, ৭১০ টাকা বস্তাদরে আমি গরীবদের নিকট থেকে ক্রয় করেছি। যা চৌগাছা শহরের লিটন হোসেন নামে এক আড়ৎ ব্যবসায়ীর নিকট বিক্রি করেছি।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম বলেন, সরকারি বস্তায় মোড়ক হত দরিদ্রদের দশ টাকা কেজি এ চাউল কালোবাজারে বিক্রি করা হচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালায় এবং ৩৯ বস্তা চাউল আটক করি। এ বিষয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) নারায়ণ চন্দ্র পালকে প্রধান করে ৩ সদস্যে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

Leave a Reply

shares