জেল হত্যা দিবস বড় বেদনার দিন- দেবাশীষ মিশ্র জয়

এইচ এম ফিরোজ,চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধিঃ

যশোরের চৌগাছা উপজেলা যুবলীগের আয়োজনে রবিবার বিকাল ৩ ঘটিকায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ৩রা নভেম্বর জেলা হত্যা দিবসে জাতীয় চার নেতার স্মরনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান দেবাশীষ মিশ্র জয়ের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক শরিফুল ইসলাম,আনিচুর রহমান,সদস্য হাফিজুর রহমান,আনিচুর দেওয়ান,হারুন অর রশিদ,মাস্টার ফারুক হোসেন,হাসেম আলী,প্রভাষক খালেদুর রহমান টিটো,আজাদুর রহমান।

উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রাজু আহম্মেদ ও ছাত্রনেতা এইচ এম ফিরোজের পরিচালনায় আসাদুল ইসলাম,আসিফ ইকবল ভূট্ট,এম শাহিন,,নুর মোহাম্মদ,নিতাই সরকার,হাসেম আলী প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে সভাপতি ও উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক দেবাশীষ মিশ্র জয় বলেন, বাঙালির ইতিহাসে বহু গৌরবোজ্জ্বল অধ্যায় রয়েছে। তেমনি এক অধ্যায় ১৯৭১। সেটি বাঙালির হাজার বছরের ইতিহাসে অনন্য অধ্যায়। ওই বছরে বাঙালি অর্জন করেছে তার শ্রেষ্ঠ সম্পদ স্বাধীনতা। আবার কিছু কিছু দিন আছে, যেগুলো স্বাধীন বাংলাদেশের ইতিহাসে কালো দিন হিসেবে পরিগণিত।

১৯৭৫ এর ১৫ই আগস্ট ও ৩রা নভেম্বর তেমনি নৃশংসতম দিন। ১৫ই আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করা হয় সপরিবারে। ৩রা নভেম্বর নির্মমভাবে হত্যা করা হয় জাতীয় চার নেতা সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দিন আহমেদ, ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী ও এ এইচ এম কামারুজ্জামানকে। আজ ৩রা নভেম্বর, জেল হত্যা দিবস, বাঙালি জাতির ইতিহাসে কলঙ্কজনক দিন।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকরা বর্বরোচিতভাবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করার কিছুদিন পরই বঙ্গবন্ধুর আজীবন রাজনৈতিক সহচর, বঙ্গবন্ধুর অবর্তমানে যারা মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন সেই জাতীয় চার নেতাকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের ভেতর গুলি করে ও বেয়নেট দিয়ে খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে ঘাতকরা।

জেল হত্যার মতো জঘন্য হত্যাকাণ্ড পৃথিবীতে খুব কম হয়েছে। এমনই দুর্ভাগা দেশ, যেখানে জেলখানার মতো জায়গায় নিরাপত্তা লঙ্ঘন করে জাতীয় নেতাদের হত্যা করা হয়। এমন ঘটনা যেন আর ঘটতে না পারে, তার জন্য এখন থেকে সতর্ক থাকতে হবে। পরিশেষে আমরা চার জাতীয় নেতার স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানাচ্ছি।

Leave a Reply

shares