খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে জোরালো কর্মসূচি আসছে: ফখরুল

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলনে জোরালো কর্মসূচি আসছে বলে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, চেয়ারপারসনের মুক্তির দাবিতে প্রতিদিনই কোনো না কোনো কর্মসূচি পালিত হচ্ছে। তবে এবার জোরালো কর্মসূচি আসছে। কেমন কর্মসূচি আসছে তা সঠিকভাবে, সময়মতো ঠিক সময়ে দেখতে পাবেন।

তিনি বলেন, নির্বাচনের বিষয়ে আমরা স্পষ্টভাবেই বলেছি। খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। নির্বাচন কমিশন ভেঙে পুনর্গঠন করতে হবে ও সংসদ ভেঙে দিতে হবে। নির্বাচনের সময় সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে হবে। একইসঙ্গে সব দলকে সমান সুযোগ দিতে হবে।

তিনি বলেন, বলা হয় বিএনপি সংকটে আছে, বিএনপি ধ্বংস হয়ে যাবে। আমরা দৃঢ়তার সঙ্গে বলতে পারি, বিএনপি এই দেশের জনগণের দল। বিএনপি এ দেশের মানুষের স্বপ্নের দল, হৃদয়ের দল। সাংবাদিক ভাইদের বলতে চাই, দয়া করে আমাদের কথাগুলো জনগণের কাছে পৌঁছে দেবেন।

তিনি বলেন, ১ সেপ্টেম্বর দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিন সমাবেশ করার জন্য সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও দলীয় কার্যালয়ের সামনে অনুমতি চাওয়া হয়েছে। যদি দয়া করা হয় তাহলে একটি স্থানে সমাবেশ হবে।

এর আগে যৌথসভায় উপস্থিত ছিলেন-সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, সহ-দফতর সম্পাদক বেলাল আহমেদ, সহ-প্রচার সম্পাদক আসাদুল করীম শাহিন, মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাসার, যুবদলের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নয়ন, মৎস্যজীবী দলের সভাপতি রফিকুল ইসলাম মাহতাব, শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নাসিম প্রমুখ।