বাংলাদেশ ব্যাংকের বিরুদ্ধে আরসিবিসির মানহানির মামলা

বাংলাদেশ ব্যাংকের বিরুদ্ধে মামলা করেছে ফিলিপাইনের রিজল কমার্শিয়াল ব্যাংকিং করপোরেশন (আরসিবিসি)।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় সাইবার চুরির ঘটনায় নাম জড়ানোয় ‘মানহানি’ হয়েছে অভিযোগ তুলে ব্যাংকটি এ মামলা করেছে। মঙ্গলবার (১২মার্চ) বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ তথ্য জানিয়েছে।

২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারি জালিয়াতির মাধ্যমে সুইফট লেনদেন মাধ্যম ব্যবহার করে নিউইয়র্কের ফেডারেল রিজার্ভ থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকের ৮১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার চুরি করা হয়।

ওই অর্থ ম্যানিলাভিত্তিক আরসিবিসি ব্যাংকের অ্যাকাউন্টে পাঠানো হয়েছিল। পরে সেখান থেকে ক্যাসিনোর মাধ্যমে সেই অর্থ উধাও হয়ে যায়।

আরসিবিসি বলেছে, বাংলাদেশ ব্যাংক তাদের প্রতিষ্ঠানের সুনাম ও ভাবমূর্তির ওপর ‘অশুভ ও গণহামলা’ চালিয়ে যাচ্ছে। এর ক্ষতিপূরণ হিসেবে ১০ কোটি পেসো (১৯ লাখ ডলার) দাবি করা হয়েছে মামলায়।

ফেডারেল রিজার্ভ থেকে বাংলাদেশের রিজার্ভের চুরি যাওয়া অর্থ উদ্ধারে গত ২ জানুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে আরসিবিসির বিরুদ্ধে মামলা করেছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। গত মাসে ফেডারেল রিজার্ভ জানিয়েছিল, মামলায় বাংলাদেশ ব্যাংককে তারা সাহায্য করবে।

এর জন্য তারা ‘কৌশলগত সহযোগিতার’ প্রস্তাব দিয়েছিল।গত ৬ মার্চ ফিলিপাইনের একটি দেওয়ানি আদালতে বাংলাদেশ ব্যাংকের বিরুদ্ধে মামলাটি করেছে আরসিবিসি।

মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে আরসিবিসি বলেছে,‘মানহানি, হয়রাণি ও আরসিবিসির সুনাম, খ্যাতি ও ভাবমূর্তি নষ্টের হুমকি দিয়ে ফরিয়াদি আরসিবিসির কাছ থেকে অর্থ আদায়ের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক বড় ধরণের কূটচাল ও ষড়যন্ত্র শুরু করেছে।’

এতে আরো বলা হয়েছে, এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাংকের উদ্দেশ্য হচ্ছে আরসিবিসির কাছে যেই অর্থ নেই অথবা ঋণ নেয়নি সেই অর্থ আদায় করা।