বাবা-মায়ের পাশে চিরনিদ্রা শায়িত হলেন খোকা

বীর মুক্তিযোদ্ধা, ঢাকার সাবেক মেয়র, সাবেক মন্ত্রী সাদেক হোসেন খোকাকে সংসদ ভবনসহ পাঁচটি জায়গায় শেষ শ্রদ্ধা জানিয়ে সন্ধ্যায় রাজধানীর জুরাইন কবরস্থানে সমাহিত করা হয়েছে।

মা সালেহা খাতুন ও বাবা এম এ করীমের কবরের পাশে শায়িত হলেন তিনি।

দাফনের সময় মরহুমের পরিবারের সদস্যরা ছাড়াও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি হাবিব উন নবী খান সোহেল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

খোকার মরদেহ কবরে নামানোর আগে এই গেরিলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারকে পুলিশের ১৭ সদস্যের একটি চৌকস দল ঢাকা জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার আবদুল আউয়ালের নেতৃত্বে রাষ্ট্রীয় সালাম জানায়।

তারা এই মুক্তিযোদ্ধাকে গার্ড অব অনার প্রদান করেন। রণাঙ্গনের মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষ থেকে আবদুল্লাহ আল নোমানের নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধারা স্যালুট জানান। এ সময় পুলিশের এডিসি নাজমুন নাহারসহ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে আজ সকাল সাড়ে ৮টায় নিউইয়র্ক থেকে এমিরেটস এয়ারলাইন্সের বিমানে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে খোকার মরদেহ পৌঁছে। সেখানে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু কফিন গ্রহণ করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির আমীর খসুর মাহমুদ চৌধুরী, মেজর (আব.) কামরুল ইসলাম, আতাউর রহমান ঢালী, খায়রুল কবির খোকন, হাবিব উন নবী খান সোহেল, ফজলুল হক মিলন, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, শ্যামা ওবায়েদ, কামরুজ্জামান রতন, নাজিমউদ্দিন আলম, তাবিথ আউয়াল, বজলুল বাসিত আনজু, নবী উল্লাহ নবী, এস এম জাহাঙ্গীর, শামসুদ্দিন দিদার, শায়রুল কবির খানসহ মহানগর নেতারা।

Leave a Reply

shares