বাসে না ওঠায় অন্তঃসত্বা নারীকে মারপিট করল বাসচালক ও সহকারী

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি :

বাসে না চড়ে সহোদরের ভ্যানে চড়ে হাসপাতালে যাওয়ার অপরাধে ৮ মাসের অন্তঃসত্বা এক নারীকে মারপিট করেছে বাস চালক ও তার সহকারী।

বুধবার দুপুরে যশোরের চৌগাছা শহরের কপোতাক্ষ ব্রিজের উপর এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী নারী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বুধবার দুপুরে মহেশপুর উপজেলার যাদবপুর ইউনিয়নের সোনাইডাঙ্গা গ্রামের শফিকুল ইসলামের কন্যা ৮ মাসের অন্তঃসত্বা শাহানাজ বেগম, তার মা ফেরদৌসি বেগম ও খালা পারুল বেগম শাহানাজের সহোদর ভাই ফিরোজ হোসেনের ভ্যানে চড়ে চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যাচ্ছিলেন।

পথিমধ্যে তারা পুড়াপাড়া বাসস্ট্যান্ডে পৌছালে সেখানে অবস্থানরত যশোর-ব- ১১-০১৪০ নম্বর বাসের চালক শাহাজান আলী ও তার সহকারীরা তাদের আটকিয়ে বলে অবৈধ যানবাহনে চড়ে যাওয়া যাবে না।

বাসে চড়ে যেতে হবে। ভ্যানে গর্ভবতী রোগী রয়েছে আমরা হাসপাতালে যাচ্ছি, বলে তারা চৌগাছার উদ্দেশ্যে রওনা দেন। অন্তঃসত্বা নারীর বহনকারী ভ্যানটি চৌগাছা শহরের কপোতাক্ষ ব্রিজের উপর পৌছালে পেছন থেকে ওই বাসটি ব্রিজের ওপরে ভ্যানটিকে আটকে দিয়ে চালক শাহাজান আলী ও সুপারভাইজার বুড়ো বাস থেকে নেমে ভ্যানের চালক ও অন্তঃসত্বা শাহানাজ বেগমের ভাই ফিরোজকে কিল-ঘুষি মারতে থাকে।

এসময় অন্তঃসত্বা শাহানাজ তাকে মারতে নিষেধ করলে ড্রাইভার শাহাজান ওই নারীকেও চড়-থাপ্পড় মারে। তাদের মারপিটে ওই নারী ভ্যানের উপর চিৎকার করে কান্নাকাটি করতে থাকে।

এসময় স্থানীয় দোকানীরা এগিয়ে এসে তাদের মারপিটের কবল থেকে উদ্ধার করে। গর্ভবতীকে মারপিটের ঘটনায় স্থানীয়রা উত্তেজিত হয়ে পড়লে চালক ও তার সহকারীরা বাসটি নিয়ে দ্রুত স্থান ত্যাগ করে চলে যায়।

ঘটনাস্থল থেকে ওই নারী তার মা-খালা ও ভাইকে নিয়ে কান্নাকাটি করতে করতে চৌগাছা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মারুফুল আলমের দপ্তরে যান। সরকারি ছুটি থাকায় ইউএনওকে মোবাইল ফোনে বিষয়টি জানালে তিনি তাদেরকে বলেন থানায় অভিযোগ দেন। বিষয়টি আমি দেখব। এরপর ওই নারীর পরিবার চৌগাছা থানায় লিখিত অভিযোগ দেন।

গর্ভবতী নারীকে মারপিট করলে কি ধরণের ক্ষতি হতে পারে জানতে চাইলে চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের গাইনি বিশেষজ্ঞ ডা. সুব্রত কুমার বাগচী বলেন সমস্যা তো হবেই। এসব ক্ষেত্রে সাধারণত সাইক্লোজিক্যাল ট্রমায় গর্ভের শিশুর মানষিক বিকাশ বাধাগ্রস্থ হয়ে থাকে।

এ বিষয়ে চালক শাহাজান আলীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমরা ২০ লক্ষ টাকা দিয়ে গাড়ি কিনে রাস্তায় চালাচ্ছি। তারা বাসে না চড়ে ভ্যানে চড়ার কারনে তাদের মারপিট করেছি। আপনি যাত্রীকে মারতে পারেন কিনা প্রশ্নে শাহাজান কোন উত্তর দেন নি।

এ বিষয়ে চৌগাছা থানার ওসি রিফাত খান রাজিব বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) কাওছার আলমকে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। চৌগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মারুফুল আলম বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। ভিকটিমকে থানায় অভিযোগ করতে বলা হয়েছে। বিষয়টি আমি অবশ্যই দেখব।

এদিকে বিআরটিএর একটি সূত্র জানিয়েছে, চৌগাছার বাসগুলির চৌগাছা-পুড়াপাড়া সড়কে কোন রুট পারমিট নেই। রুট পারমিট ছাড়াই বাসগুলি ওইরুটে চলাচল করে থাকে। স্থানীয়দের অভিযোগ চৌগাছার বাস মালিক সমিতি ও শ্রমিক সংস্থার লোকজন সড়কে লাঠি নিয়ে দাড়িয়ে ভ্যান-রিক্সার পরিবর্তে বাসে চড়তে বাধ্য করে থাকে। এ নিয়ে প্রায়ই যাত্রীদের সাথে বাস শ্রমিকদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে থাকে।