বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ প্যাকেজ ঘোষণা, রোরবার থেকে নিবন্ধন শুরু

হজ এজেন্সিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) ২০১৯ সালে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ প্যাকেজ ঘোষণা করেছে।

শনিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর নয়াপল্টনে হোটেল ভিক্টোরির হলরুমে সংবাদ সম্মেলনে এ প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়।

ঘোষিত প্যাকেজ অনুযায়ী কুরবানী ব্যতীত সর্বনিম্ন প্যাকেজ মূল্য তিন লাখ ৪৫ হাজার ৮০০ টাকা।

এই অঙ্ক সরকারি হজযাত্রার ব্যয়ের কাছাকাছি। এবার সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যেতে প্যাকেজ-২ এ তিন লাখ ৪৪ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

হাবের প্যাকেজ ঘোষণা করে সংগঠনের মহাসচিব এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম বলেন, “এর চেয়ে কম মূল্যে কেউ হজযাত্রী পাঠাতে পারবে না।”

ঘোষিত প্যাকেজে বিমান ভাড়া ১ লাখ ২৮ হাজার টাকা, মক্কা ও মদিনায় বাড়ি ভাড়া ১ লাখ ৬ হাজার ৫০০ টাকা, সৌদি আরবের বিভিন্ন সার্ভিস চার্জ ও পরিবহন ভাড়া ৪০ হাজার ৮৮২ টাকা ৫০ পয়সা, জমজমের পানির জন্য ২৬০ টাকা, অতিরিক্ত সার্ভিস চার্জ ও ভ্যাট ৩৫ হাজার ৪৩৭ টাকা ৫০ পয়সা, স্থানীয় সার্ভিস চার্জ ৮০০ টাকা, হজযাত্রীদের কল্যাণ তহবিলের জন্য ২০০ টাকা, প্রশিক্ষণ ফি ৩০০ টাকা, চিকিৎসা কেন্দ্র ফি ১০০ টাকা, খাওয়া খরচ ৩০ হাজার, অন্যান্য খরচ ১ হাজার ২১৫ টাকা ও প্রাক-নিবন্ধন ফি ২ হাজার টাকা দেখানো হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে হাব সভাপতি আবদুস ছোবহান ভূঁইয়া বলেন, রোববার থেকে হজযাত্রীদের নিবন্ধন শুরু হবে। এই নিবন্ধন ২০ মার্চ পর্যন্ত চলবে।

হাব মহাসচিব তসলিম বলেন, কোনো মধ্যস্বত্বভোগী যেন কম মূল্যে হজে পাঠানোর কথা বলে টাকা না নিতে পারে সেজন্য সংগঠনের সবাইকে সচেতন থাকতে হবে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “আমরা যেভাবে হজযাত্রী পাঠাতে চাই, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের এয়ারক্রাফটের সংখ্যা কম থাকায় সেভাবে পাঠাতে পারছি না। আমরা আশা করি বিমান ফ্লাইট শিডিউল নির্ধারণের ক্ষেত্রে হাবের সাথে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করবে।”