১২ এপ্রিল থেকে দেশের সব সিনেমা হল বন্ধ

বিদেশি ছবি আমদানির নীতিমালা শিথিল করার পাশাপাশি দেশীয় ছবি নির্মাণ বাড়ানোর উদ্যোগ না নিলে ১২ এপ্রিল থেকে দেশের সব প্রেক্ষাগৃহ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে হল মালিকদের সংগঠন চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতি।

১২ মার্চ দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন সমিতির নেতারা।

সংগঠনটির সভাপতি ও মধুমিতা মুভিজের কর্ণধার ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘হলে সিনেমা নেই। দেশে ছবি হচ্ছে না। বিদেশের ছবিও সহজভাবে আনা যাচ্ছে না। বাধ্য হয়ে অনেক হল মালিক এ ব্যবসা বন্ধ করে দিয়েছেন। কিন্তু আমরা যারা আছি তাদের হলগুলো সচল রাখতে সরকারের সুদৃষ্টি খুব প্রয়োজন।

আমরা দেশে সিনেমা নির্মাণ বাড়ানোর উদ্যোগ চাই। সেই সঙ্গে বিদেশি ছবি আমদানি করতে সহজ প্রক্রিয়া চাই। আমাদের এই দাবিগুলো না মানা হলে আজকের ঠিক এক মাস পর অর্থাৎ ১২ এপ্রিল থেকে দেশের সব হল বন্ধ করে দেওয়া হবে।’

নওশাদ জানান, সংবাদ সম্মেলন শেষে হল মালিকদের নিয়ে মধুমিতা হলের কার্যালয়ে বৈঠকে বসেন তারা। তাদের নিয়েই পুরো বিষয়টির সুরাহা করতে চান। তারও আগে তথ্যমন্ত্রীর সঙ্গে এ বিষয়টি নিয়ে আলাপ করেও তেমন কোনো সুরাহা হয়নি।

সংগঠনটির পক্ষ থেকে নওশাদ আরও বলেন, ‘একটা দেশে বছরের প্রথম দুই মাসে কোনো চলচ্চিত্র মুক্তি পায়নি। সেখানে কীভাবে হলগুলো টিকে থাকে সেটা কেউ ভাবে? দুই মাস পর যা মুক্তি পেয়েছে সেগুলো চলেনি। ধারাবাহিক ব্যর্থতায় হল মালিকরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। হল বাঁচাতে সাফটা চুক্তির নীতিমালা আরও সহজ করার দাবি করছি।’

প্রয়োজনে হলিউড ছবির পাশাপাশি বলিউডের হিন্দি ও উপমহাদেশের অন্যান্য দেশের সিনেমা মুক্তির প্রথম দিই আনার সুযোগ করে দিতে হবে।